বাসিন্দা বাংলার, পোস্ট অফিস ঝাড়খণ্ডে।

0

Last Updated on

উত্তম মণ্ডল

“শিবঠাকুরের আপন দেশে/ নিয়মকানুন সর্বনেশে” ছিল সুকুমার রায়ের কবিতায় সীমাবদ্ধ। কিন্তু বাংলার বাসিন্দাদের পোস্ট অফিস যে সত্যি সত্যি ঝাড়খণ্ডে, এমনটা বাস্তবে দেখে অবাক হতে হয় বৈকি। আর এমনটাই হয়েছে এই বাংলার বীরভূম জেলার খয়রাসোল ব্লকের বনকাটা, ধাসুনিয়া ও শালজোড়–এই তিনটি গ্রামের পোস্ট অফিস বর্তমান ঝাড়খণ্ডের বাগডহরী গ্রামে। লোকপুর থানার এই তিনটি গ্রামের হালহকিকৎ দেখতে বৈশাখের চড়া রোদ মাথায় করে বেরিয়ে পড়লাম মোটর বাইকে।
শাল নদী পেরিয়ে একসময় পৌঁছে গেলাম বনকাটা গ্রামে। চারদিকে ফাঁকা মাঠ একসময়ে মাওবাদীদের মুক্তাঞ্চল বলে পরিচিত ছিল। এছাড়া রয়েছে খয়রাসোলের তৃণমূলী গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। কাজেই এখানকার বাতাসে সব সময় বারুদের কটু গন্ধ, সেই সঙ্গে কখন কী হয়, এমন একটা আশঙ্কা।… জানা গেল, ইংরেজি ১৯৫২ সাল থেকে ২০০৬ সালের ৪ এপ্রিল পর্যন্ত এই বাগডহরী পোস্ট অফিসের অ্যাকাউণ্ট অফিস ছিল খয়রাসোল। তারপর তা পাল্টে হয় পাশের রাজ‍্য ঝাড়খণ্ডের জামতাড়া। কিন্তু বীরভূমের এই গ্রাম তিনটি আগের মতোই রয়ে যায় বাগডহরী পোস্ট অফিসের অধীনে। প্রশাসনিক পরিবর্তনের এই তিনটি গ্রামের চাকরির ইণ্টারভিউ লেটার থেকে সব রকম দরকারি চিঠিপত্র পৌঁছাচ্ছে নির্দিষ্ট সময়ের অনেক পরে, এমনটাই দাবি বনকাটা গ্রামের উত্তম দাসসহ এলাকার বাসিন্দাদের। তাদের আরও অদ্ভুত দাবি, চিঠিপত্র পেতে গেলে তাদের ইচ্ছে করেই ভুল করে দিতে হয় ঝাড়খণ্ডের ঠিকানা। বিষয়টি নিয়ে তারা দরবার করেছেন খয়রাসোল বিডিও, সিউড়ি হেড পোস্টাপিস থেকে সাংসদ শতাব্দী রায় পর্যন্ত। এমনকি, এখানে তারা একটি নতুন পোস্ট অফিসের দাবিও জানিয়েছেন। কিন্তু সব মিলিয়ে নীট ফল এখনো জিরো। উত্তম দাস এলাকার সক্রিয় তৃণমূল কর্মী। তার ঘরের দরজায় লাগানো ঘাসফুল পতাকা। উত্তম দাসের বাড়ি থেকে বেরিয়ে ঢুকলাম ঝাড়খণ্ডের বাগডহরী গ্রামের পোস্ট অফিসে। কারণ, এখানেই রয়েছে বীরভূমের তিনটি গ্রামের ঠিকানা। এখানে বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন করা হলে বাগডহরী পোস্ট অফিসের পোস্ট মাস্টার ভৈরব নাথ চৌধুরী, পোস্টম‍্যান গোসাইদাস গরাই এবং জামতাড়া সাব-ডিভিশনাল ইন্সপেক্টর সিকন্দর প্রধান জানালেন, বীরভূমের ওই তিনটি গ্রামে পরিষেবা দেওয়ার ক্ষেত্রে তাদের কোনো ঘাটতি নেই। তবে আলাদা পোস্ট অফিসের দাবি উঠতেই পারে। সেটা প্রশাসনিক ব‍্যাপার। যাই হোক, পশ্চিমবঙ্গের এই তিনটি গ্রামের ঠিকানা এখনো ঝাড়খণ্ডের বাগডহরী পোস্ট অফিস।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here