কাশ্মীর প্রসঙ্গ টেনে ভারতীয় সেনার বিরুদ্ধে যুদ্ধের আহ্বান পাকিস্তানের বিতর্কিত ধর্মপ্রচারকের

0

Last Updated on

“ভারতকে পস্তাতে হবে| সঙ্গে ভারতীয় সেনাকেও | যুদ্ধ শুরু হয়ে গিয়েছে কাশ্মীরের প্রতি ভারতের অবিচারের সঙ্গে সঙ্গে | যুদ্ধে ভরাতীয় সেনারা যুদ্ধক্ষেত্র থেকে পালানোর পথ খুঁজে পাবেনা | সিরিয়া ও ইজিপ্টের সুলতান সালাউদ্দিন যে আগ্রাসী নীতিতে ধর্ম প্রচার করেচিলেন সেভাবেই যুদ্ধ হবে ভারতের সঙ্গে |” ধর্মীয় উস্কানিমূলক এই মন্তব্যে কাশ্মীরের জন্য ভারতকে নিশানা করলেন পাকস্থিত ধর্মীয় সংগঠনের প্রচারক আলামা খাদিম হুসেন রিজভি | তেহরিক-এ-লেবাকিক এর সমর্থকদের এইবলেই উদ্বুদ্ধ করছিলেন এই বিতর্কিত ধর্মপ্রচারক |

পাকিস্তানের সেনাপ্রধানের পাশাপাশি সিন্ধু প্রদেশের বিধানসভাই হোক বা পাক সংসদ ,সব জায়গাতেই কাশ্মীরের মানুষদের পাশে থাকার বার্তা দিয়ে চলেছে পাকিস্তানের কিছু শক্তি | আর তা হচ্ছে সবটাই ধর্মের নামে | অভিযোগ সেখানকার অসাম্প্রদায়িক বুদ্ধিজীবীদের মতে | রিজভি এই সভাতে বলছেন,খলজি,শেরশাহ যেভাবে ময়দানে যুদ্ধ করে ভারতকে পরাস্ত করে কায়েম করেছিেন নিজের সাম্রাজ্য,ঠিক তেমনই যুদ্ধের সময় উপস্থিত হয়েছে | এই যুদ্ধ লড়তে হবে পাকিস্তানের সকলকে মিলিতভাবে |

অথচ নিজের দেশেই সন্ত্রাসবাদী বলে চিহ্ণিত এই ধর্মপ্রচারককে সম্প্রতি জামিনে মুক্তি দিযেছে পাকিস্তানের একটি আদালত | ওই দেশে অবস্থিত এক খ্রীষ্টান ইসলাম সম্পর্কে অবমাননাকর বক্তব্য রাখার পরও কীভাবে সেখানকার আইন তাঁকে ছেড়ে দিল, সেই প্রশ্নে কার্যত পাকিস্তানকে গত বছর অবরুদ্ধ করেছিল এই জঙ্গী নেতা | পাঞ্জাব প্রদেশে আইন-শৃঙ্খলা নিজের হাতে নিয়ে ধ্বংসাত্মক কান্ড চালানোর পর পর্যন্ত শেষ পর্যন্ত পাকিস্তান সরকার তাকে গ্রেফতার করে |
এহেন ‘সন্ত্রাসবাদী’ ধর্মপ্রচারকের বিরুদ্ধে পাকিস্তান সরকার কেন চুপ করে থাকছে ইতিমধ্যেই প্রশ্ন করছেন বহু মানুষ | ভারতের কাশ্মীর নিয়ে ধর্মীয় উস্কানি দিয়ে হিংসা জিইয়ে রাখার এই চেষ্টার পিছনে কি তবে পাক সেনার মদতই স্পষ্ট হচ্ছে ক্রমশ?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here