ভারতীয় সেনাপ্রধানকে নিয়ে বিতর্কিত ছবি পোস্ট করায় এফআইআর দায়ের সাংবাদিকের বিরুদ্ধে, নিজেই মুছলেন পোস্ট

0

Last Updated on

ভারতের স্বাধীনতা দিবসের ঠিক আগেই পাকিস্তানের ৭৩তম স্বাধীনতা দিবস উদযাপনে বুধবার পাকিস্তান জুড়ে কালো দিবস পালনের ডাক দেওয়া হয়েছে | পাকিস্তানের নতুন লোগো প্রকাশের পাশপাশি কাশ্মীরিদের প্রতি নিজেদের সহমর্মিতা বোঝাতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভারত বিদ্বেষী মন্তব্যের আভাস পাওয়া যাচ্ছিল সকাল থেকেই | পাকিস্তানের নিজ উদ্দেশ্য ও কাশ্মীর সমস্যা জিইয়ে রেখে দেশের মূল সমস্যা থেকে জনগণের নজর ঘুরিয়ে রাখার চেষ্টার না হয় যুক্তিগ্রাহ্য কারণ পাওয়া যাবে খুঁজলে | কিন্তু ধরুন যারা দেশে বসে শুধুমাত্র রাজনৈতিক বিরোধীতার জন্য পাকিস্তানের সঙ্গে হাত মিলিয়ে ভারতের সরকার ও ভারতীয় সেনার প্রতি অবমাননাকর মন্তব্য বা বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখাচ্ছেন | এবার তাঁদের প্রতি আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করা হল |

ঘটনাটা ঘটে চারদিন আগে | জনৈক সাংবাদিক প্রশান্ত কানোজিয়া তার ট্যুইটার হ্যান্ডেল থেকে ভারতীয় সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াতের ছবির পাশাপাশি জালিয়ানওয়ালাবাগের হত্যাকান্ডের মূল চক্রী জেনারেল ডায়ারের দুটি ছবি রেখে কাশ্মীর ও জালিয়ানওয়ালাবাগের ঘটনা দুটির তুলনা টানার চেষ্টা করেন | খুব কম সময়ের মধ্যেই সেই ট্যুইটের রি-ট্যুইটের সংখ্যা দাঁড়ায় ৭০০ এর উপর |

এরপরই এ নিয়ে বিতর্কের ঝড় ওঠে | ভারতীয় সেনাবাহিনীর প্রধানের বিরুদ্ধে এমন আপত্তিকর ট্যাগের কঠোর সমালোচনা করেন | ওই সাংবাদিককে প্রাণ নাশের হুমকির কথা তিনি এরপর জানান ওই সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মেই | তারপরই আচমকা নিজের ভুল স্বীকার করে ওই ট্যুইটটিকে নিজের হ্যান্ডেল থেকে প্রত্যাহার করেন | লিখে জানান, কাশ্মীরের ঘটনায় সাময়িক ক্ষোভের প্রকাশ ওই ট্যুইট |

কিন্তু এর মধ্যেই ওই সাংবাদিক প্রশান্ত কনৌজের বিরুদ্ধে অবমাননাকর মন্তব্যের জেরে সুপ্রিম কোর্টের এক আইনজীবী দিল্লির থানায় অভিযোগ দায়ের করার অনুরোধ করে দিল্লির পুলিশ কমিশনারকে একটি অভিযোগ জানান | সেই চিঠিতে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে অবমাননা ও জাতি বিদ্বেষ ছড়ানোর অপরাধে ভারতীয় দন্ডবিধি অনুযায়ী ১২৪এ ও ১৫৩,১৫৩এ সহ একাধিক ধারায় এফআইআর দায়ের করতে বলেন ওই আইনজীবী | সূত্রের খবর জল এতদূর গড়ানোর পরই ওই সাংবাদিক ট্যুইট প্রত্যাহার করে ওই বিবৃতি দেন |

ভরাতীয় সেনাপ্রধানকে এভাবে দেখানোর জন্য বুধবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ দাবি করেন প্রাক্তন লেফ্টানেন্ট জেনারেল গুরমিত সিং সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মেই আবেদন করেন | প্রসঙ্গত দিল্লির এই সাংবাদিক এর আগেও বিজেপি তথা হিন্দুদের প্রতি আপত্তিকর মন্তব্য ও উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে নিয়ে একটি ভিডিও পোস্ট করায় জেলা হেফাজতে ছিলেন | পরে জামিনে মুক্ত হন তিনি |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here